Thursday, October 28, 2021
Homeঅনুসন্ধানকাশ্মীরে! তালেবান আমাদের সাহায্য করবে-বলছেন পাকিস্তান নেতা

কাশ্মীরে! তালেবান আমাদের সাহায্য করবে-বলছেন পাকিস্তান নেতা

কাশ্মীরকে স্বাধীন করার ক্ষেত্রে তালিবরা পাকিস্তানকে সাহায্য করতে চলেছে। পাকিস্তানি এক টেলিভিশন চ্যানেল আয়োজিত ডিবেটে উপস্থিত হয়ে অন ক্যামেরা ওই মন্তব্যটি করেন রাজনীতিক নীলম ইরশাদ শেখ। তিনি বলেন, তালিবান আমাদের জানিয়েছে যে কাশ্মীর ইস্যুতে তাঁরা আমাদের পাশেই রয়েছে। ওই ভিডিয়োর ক্লিপটি রাতারাতি ভাইরাল হয়ে যায়। এহেন চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করায় চমকে উঠেছিলেন নিউজ শোর সঞ্চালকও। তিনি বারবার রাজনীতিককে প্রশ্ন করতে থাকেন তাঁর ওই দাবির কারণ কী? তিনি জিজ্ঞেস করেন, ‘এই তথ্য আপনার কাছে এল কী করে? তালিবানের তরফ থেকে আপনার কাছে কি কোনও হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ বা টেলিফোন এসেছিল? আপনি কি প্রমাণ দেখাতে পারবেন’? এর পরিপ্রেক্ষিতে নীলম ক্রমাগত বলতে থাকেন, ‘পাকিস্তানের ক্ষমতা অনেক। সারাবিশ্ব জানে পাকিস্তান সেরা। ইমরান খান সেরা। আর সেই কারণেই তুরস্ক, মালয়েশিয়ার সরকার, আফগানিস্তানের সরকার আমাদের সমর্থন করে।

তালিবান তো বলেই দিয়েছে কাশ্মীর দখলের ক্ষেত্রে আমাদের সাহায্য করবে। সেখানে সাহায্য করবে তালিবান। তাঁরা এভাবেই ধন্যবাদ জানাবে পাকিস্তানকে। ভারত থেকে কাশ্মীর আলাদা করব আমরা। শো-র হোস্ট এদিন বারবার নেত্রীর কথার বিরোধিতা করতে থাকেন। তিনি বলেন, ম্যাডাম আপনি যা বলছেন সেই প্রসঙ্গে আপনার ধারণা রয়েছে? সারাবিশ্ব এই শো দেখবে। ভারতও দেখবে। প্যানেলে বসা বিরোধিরাও নেত্রীকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি এদিন। তবে নীলম বলতে থাকেন যে পাক সেনা এইপ্যানেলে বসা বিরোধিরাও নেত্রীকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি এদিন। তবে নীলম বলতে থাকেন যে পাক সেনা এই মুহূর্তে খুবই শক্তিশালী এবং ‘কাশ্মীরকে আজাদ’ করানোর লক্ষ্যে তাঁদের সাহায্য করবে তালিবান।স্বাভাবিকভাবেই ঘটনার জেরে ব্যাপক হইচই শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বর্তমানে আন্তর্জাতিক স্তরে গুঞ্জন চলছে যে তালিবদের আফগানিস্তান দখলের ক্ষেত্রে নানাভাবে সাহায্য করেছে ইমরান খানের সরকার। এতদিন ধরে পাকিস্তান সেই তত্ত্ব খারিজ করে দিচ্ছিল।

কিন্তু খোদ  সরকারের নেত্রীর ওই মন্তব্যে যেন জল্পনায় সিলমোহর পড়ল!  কিছুদিন আগেই ইমরান খান নিজের সরকারের নেতা মন্ত্রীদের তালিবান ইস্যুতে কথা বলার ক্ষেত্রে সেন্সর করেছিলেন। এদিন সেই ‘নিয়ম’-ও ভেঙেছেন নেত্রী। অন্যদিকে, তালিবানের তরফ থেকে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে ভারত তাঁদের লক্ষ্য নয়। কট্টরপন্থী দলের তরফ থেকে বলা হয়েছিল, কাশ্মীর ভারতের আভ্যন্তরীণ ইস্যু। আমরা এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করব না। ভারতের সীমানায় প্রবেশ করার পরিকল্পনা নেই বলেই দাবি করেছিল তালিবান গোষ্ঠী।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments