1. [email protected] : ashik :
অনলাইনে ইনকাম করুন ঘরে বসে মাত্র 5 টি উপায়ে - NotunBD | নতুন বিডি
শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৩২ অপরাহ্ন

অনলাইনে ইনকাম করুন ঘরে বসে মাত্র 5 টি উপায়ে

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২১৪ Time View

অনলাইনে ইনকাম করতে চাইলে ঘরে বসে মাত্র 5 টি উপায়ে মেনে ইনকাম করতে পারেন এর জন্য চাই প্রচুর ধৈর্য পরিশ্রম এবং প্রতিনিয়ত লেগে থাকা।
চলুন দেখে নেয়া যাক পাঁচটি উপায়-

1] Youtube–

Youtube এ প্রত্যেক মিনিটে ৫০০ ঘন্টার ও বেশী ভিডিও আপলোড হয় গোটা
পৃথিবী থেকে৷
১৯০ কোটির বেশি ইউসার log in করে মাসে৷
১০ জন মানুষের মধ্যে 7 জন মানুষ ইউটিউব কে ব্যবহার করে প্লাটফর্ম হিসাবে ।।ইন্টারনেটে সবথেকে বেশি ভিউ সাইট হচ্ছে ইউটিউব। আপনি যদি একটি প্যাসিভ ইনকাম পেতে চান তাহলে আপনাকে একটি প্রফেশনাল ইউটিউব
চ্যানেল খুলতে হবে।
যেটা যেকোনো আপনার পছন্দের টপিকের উপর হতে পারে। বর্তমানে হাজার হাজার মানুষ ইউটিউবে education-hobby কে -লক্ষ লক্ষ মানুষের সাথে শেয়ার করছে;
কেউ কুকিং জানে ভালো তাই সে কুকিং নিয়ে ভিডিও করছে” কেউ কমেডি জানে শে কমেডি নিয়ে।। পেট ভিডিও- ফ্যাশন ভিডিও মোটিভেশনাল ভিডিও আরো আরো বিভিন্ন টপিকের ওপর ভিডিও বানিয়ে নিজের বিজনেস বানিয়ে ফেলেছে ।
তাই আপনি ও আপনার জ্ঞান অভিজ্ঞতা কে সবার সঙ্গে শেয়ার করে ফুলটাইম ইনকামের রাস্তা বের করতে পারেন।

কোন ধরনের ভিডিও আপলোড করে ইউটিউব থেকে আয় করবেন?

ইউটিউবে চ্যানেল শুরু করার আগেই আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি কোন টপিকের ওপর ভিডিও আপলোড করবেন?
আপনি অন্যর ভিডিও আপলোড করতে পারবেন না সেটা কপিরাইট কনটেন্ট হয়ে যাবে যেমন -সিনেমার গান, স্পোর্টস ভিডিও ইত্যাদি।।
আপনারকনটেন্ট(বিষয়) যদি unique হয় তাহলে আপনার চ্যানেল খুব তাড়াতাড়ি grouth করবে এবং তত বেশি সাবস্ক্রাইবার বাড়বে। আপনি তত বেশি আয় করবেন “
চেষ্টা করবেন পছন্দের ভিডিও বানানোর ।

ইউটিউব চ্যানেলের জন্য সেরা তিনটি আইডিয়া-

গেমিং চ্যানেল, ব্লগিং চ্যানেল, ফ্যাশন চ্যানেল

ইউটিউব কত ভিউতে কত টাকা দেয়?

আপনার ভিডিওর জন্য ইউটিউব থেকে আপনি কতটাকা পাবেন তা বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে।যেমন ভিডিওর বিষয়, দর্শকের ধরন, দর ভৌগলিক অবস্থান, দর্শকদের বয়স,সংখ্যা ইত্যাদি।
১০০০ভিও তে ২/৩ ডলার পেতে পারেন.

এডসেন্স কি?

এডসেন্স হলো গুগোল দ্বারা পরিচালিত একটি একটি প্রোগ্রাম ।।এই
প্রোগ্রাম এর মাধ্যমে আপনার ইউটিউব চ্যানেল গুগল এড চালাবে
চ্যালেনে যে ভিডিও গুলো পোস্ট করবেন সেগুলো গুগল এডসেন্স চালাবে এবং আপনার তত বেশি ইনকাম হবে।
চ্যানেলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বা নিজের পণ্য প্রমোট করে ইনকাম করতে পারেন

তীব্র প্রতিযোগিতার এই বাজারে ইউটিউব থেকে আয় করতে মেধা- সৃজন ও শ্রম প্রতিটিই প্রয়োজন অনেক। একবার প্রতিষ্ঠিত ইউটিউবার হয়ে যেতে পারলে পেছনে তাকাবার সময় নাই।

 

2] blogging থেকে আয়–

ব্লগ কি?
ব্লগ একটি ব্যক্তিগত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম যেখানে ব্লগাররা তাদের ওয়েবসাইটে কনটেন্ট পোস্ট করেন এবং ব্যবহারকারীরা সেখান থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য এবং তাদের মন্তব্য প্রকাশ করেন
।ব্যক্তিগত ডাইরির পরিবর্তে ব্লগ একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম
হয়ে উঠেছে।

ব্লগার কি?
ব্লগার হলো যিনি কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ে ব্লক তৈরি করেন

প্রকারভেদ?

ব্লগ বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে ব্যক্তিগত ব্ল্‌ নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর ব্লগ, কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান ব্লগ।

ব্লগিং কি? ব্লগিং কেন করবেন ?

কোন একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে পাঠকের মতামত প্রদানের জন্য বিভিন্ন বিষয়বস্তুকে তুলে ধরা কে ব্লগিং বলা হয়।
যদি গুগলের সার্চ বক্সে কোন নির্দিষ্ট বিষয় খুঁজেন তাহলে ওই বিষয়ের উপর লেখা অনেকগুলো সাইট বা ব্লগ পাবেন যা পড়ে আপনি অনেক উপকৃত হতে পারেন
অনেক কিছু শিখতে এবং জানতে পারবেন।ব্লগিং দ্বারা পৃথিবীর মানুষদের জানাতে পারবেন
আপনার সেই বিষয়; এতে তারা উপকৃত হবে আপনি শখের বশেই হোক বা অন্যদের মত প্রকাশের উদ্দেশ্যে বা কিছু জানানোর জন্য ব্লগিং করতে পারেন।

ব্লগিং থেকে ইনকাম-

e book sells
posting
advertisement
affiliate marketing

ব্লগিং খুবই জনপ্রিয় এবং ইনকামের একটি শক্ত ভিত হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে।
বিভিন্ন বিষয়ে আর্টিকেল লিখে ইনকাম করছে ব্লগার।
গুগল এডসেন্স এর 90 পার্সেন্ট ব্লগার তাদের ব্লক থেকে ইনকাম তৈরি করে।
এফিলিয়েট মার্কেটিং,গুগল এডসেন্স অন্য কোম্পানির অ্যাডভার্টাইজমেন্ট থেকে ইনকাম করা সম্ভব।
দেশের অধিকাংশ মানুষ এখন পার্ট-টাইম ও ফুল টাইম ব্যবসা হিসেবে ব্লগিংকে প্রাধান্য দিচ্ছে।

 

3] freelancing করে আয়–

আমরা কমবেশি সবাই ফ্রিল্যান্সিং শব্দটির সাথে পরিচিত ফ্রিল্যান্সিং ফ্রিল্যান্সিং হলো ঘরে বসে টাকা ইনকাম এর জনপ্রিয় একটি মাধ্যম
এখানে আপনি একজন self-employed
হিসেবে কাজ করতে পারেন ।
পার্ট টাইম অথবা ফুল টাইম দুটো ভাবেই করা জেতে পারে।

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্যে দক্ষতা-

আপনি যদি একজন প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার হতে চান তাহলে আপনাকে বিশেষ কিছু বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে
এক্ষেত্রে আপনার স্কিল নলেজ এক্সপেরিয়েন্স থাকাটা অবশ্যই জরুরি।
একবার যদি আপনি নিজেকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারেন তাহলে ইনকামের বন্যা বইবে।

ফ্রিল্যান্সিং এর সেক্টর গুলি

গ্রাফিক্স ডিজাইন -গ্রাফিক ডিজাইন হল এমন একটি বিষয় একটি নৈপুণ্যতা আ আবার যেখানে পেশাদাররা বার্তা আদান -প্রদানের জন্য ভিজ্যুয়াল কন্টেন্ট তৈরি করে থাকেন।
ডিজিটাল মার্কেটিং-ডিজিটাল মার্কেটিং কে অনলাইন মার্কেটিংও বলা হয়,যেখানে ইন্টারনেট এবং অন্যান্য ডিজিটাল ডিজাইনের মাধ্যমে সম্ভাব্য গ্রাহকদের সাথে সংযোগ স্থাপনের জন্য ব্র্যান্ডের প্রচার প্ররচনা চালানো হই।
ভিডিও এন্ড অ্যানিমেশন-এনিমেশন হল এমন একটি অনুকরণ যা দ্রুত ধারাবাহিকভাবে প্রদর্শিত চিত্র বা ফটোগ্রাফের সদ্বারা তৈরি করা হয়।
রাইটিং -লেখা হল একটি প্রতীক (বর্ণমালার অক্ষর, বিরামচিহ্ন যা ব্যবহার করে একটি পঠনযোগ্য মধ্যে চিন্তা এবং ধারণাগুলি অনুধাবন করা যাই

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য সাইট গুলি হল-
fiber.com upwork.com guru.com এইসব সাইটগুলিতে আপনি আপনার দক্ষতা এবং বায়ো ডাটা লিখে রাখতে পারেন
ফরেনার কান্ট্রি গুলোতে বায়ার আপনাকে হায়ার করে নিবে চুক্তি ভিত্তিক

 

4] facebook থেকে ইনকাম–

ফেসবুক এখন পুরো ওয়ার্ল্ড এর সবচাইতে বেশি জনপ্রিয় সোশাল নেটওয়ার্ক সাইট।বিশ্ব জনসংখ্যা 80 ভাগ মানুষ এখন ফেসবুক ব্যবহার করে।
আপনি জেনে অবাক হবেন ফেসবুক এর সাহায্যে খুব সহজেই অনলাইন
থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম এর জন্য কি কি প্রয়োজন?

মূলত ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম এর জন্য প্রয়োজন ইনকাম সোর্স , আপানর ডেস্টিনেশন।
এবং আপনার শ্রমপ।আপনার একটি ফেসবুক একাউন্ট থাকতে হবে,একটি পে্‌ একটি গ্রুপ এবং active গ্রপে মিনিমাম 60 হাজার মেম্বার থাকতে হবে|
ফেসবুক পেজে যত বেশিলাইক, গ্রুপে যত বেশি মেম্বার থাকবে আপনার তত বেশি ইনকাম|

চলুন দেখে নেওয়া যাক কি কি উপায়ে আপনি ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারেন?

1.ফেসবুক পেজ থেকে-

ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করতে হলে আপনার একটি একটিভ ফেসবুক পেজ থাকতে হবে!যেখানে অনেক বেশী লাইক বা ফলোয়ার হতে হবে| আপনি
ফেসবুক পেজ থেকে বিভিন্ন ধরনের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের বিজনেস করতে পারেন| যেমন পোশাক-আশাক- বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কসমেটিক সামগ্রী বিক্রি
করতে পারেন চাইলে ফেসবুক পেজ পেজে আপনি এডমিন মডারেটর রেখে দিতে পারেন যারা আপনার পেজ কে সচল রাখতে সাহায্য করবে|

2.ফেসবুক ভিডিও থেকে-

ফেসবুকে আরেকটি ইনকামের মাধ্যম হলো ফেসবুক ভিডিও upload.আপনি আপানর পেজ থেকে বিভিন্ন ধরনের গেমিং, লাইভ স্ট্রি্‌ ফানি ভিডিও
আপলোড করে ফেসবুকের চাহিদা অনুযায়ী পলিসি বা নিয়মকানুন মেনে ফেসবুক থেকে
মনিটাইজেশন অন করে নিতে পারেন! আপনার পেজে মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে ফেসবুক গুগল
তাদের এড শো করাবে এবং আপনি সেখান থেকে একটি হ্যান্ডসাম ইনকাম পেতে পারেন।

3.ফেসবুক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে-

ফেসবুকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটের হয়ে আপনি আপনার পেজে বিভিন্ন
পণ্যের অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন যে কোম্পানির অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন সেখান
থেকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন আপনাকে সে কোম্পানি প্রদান করবে। আপনি আপনার পেজে কোম্পানির
প্রোডাক্ট প্রচার এবং প্রমোশন এর মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে যেতে পারেন। যেহুতু ফেসবুক ব্যবহারের সংখ্যা অনেক! সেহেতু আপনার বিক্রি-বাট্টা অনেক বেড়ে যাবে।
এতে কোম্পানির সুনাম অক্ষুণ্ন থাকবে,এবং আপনার একটি ভালো হ্যান্ডসাম কমিশন পেয়ে যেতে পারেন।

4.ফেইসবুক buy sale করে-

ফেসবুকে buy-sell করে আপনি ইনকাম করতে পারেন।মনে করেন আপনার কোন প্রোডাক্ট পুরাতন হয়ে গেছে নতুন প্রয়োজন! মুহূর্তেই বিক্রি করে বা এক্সচেঞ্জ করে নিতে পারেন
আপনার ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ।এছাড়াও আপনি ফেসবুকের বিভিন্ন সার্ভিস প্রদান করে ইনকাম করে থাকতে পারেন
যেমন ফেসবুক গ্রুপ বিক্রি করে, পেজ বিক্রি করে, এগুলোর চাহিদাবর্তমান বাজারে ব্যাপক ।
আপনি আপনার গ্রুপে আপনার জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন প্রোডাক্ট বিক্রয়ের মাধ্যমে ইনকাম করতে ।

 

5] Amazon থেকে ইনকাম—

অআপনি যদি আগে না জেনে থাকেন অ্যামাজন থেকে ইনকাম করা যায়
তাহলে এই আর্টিকেল আপনার জন্য। 20১২ সাল থেকে অ্যামাজন খুবই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে! তাই ইনকামের
একটি বেস্ট সুযোগ তৈরি হয়েছে অ্যামাজন থেকে পাঁচটি উপায়ে আপনি আয় করতে পারবেন

পণ্য ডেলিভারি করে আয়
আপনি যদি ভ্রমন পিপাসু হয়ে থাকেন তাহলে অ্যামাজনের হয়ে কুরিয়ার ম্যান পণ্য ডেলিভারি ম্যান হিসেবে ইনকাম করতে পারেন

হাতে তৈরি পণ্য দিয়ে অ্যামাজন থেকে আয়ের

আপনার মেধা এবং শ্রম দিয়ে তৈরি উৎপাদিত কে।ন পণ্য
অ্যামাজনে বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

ভার্চুয়াল চাকরি করে আয়

আপনার যদি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামিং সম্পর্কে ভালো knowledge
থাকে তাহলে অ্যামাজনে ভার্চুয়াল চাকরি করতে পারেন

অ্যামাজন কিন্ডল পাবলিশার
আপনি যদি লেখালেখি করতে পছন্দ করেন তাহলে আমাজন
কিন্ডেল পাবলিশিং করে অ্যামাজন থেকে ভালো পরিমাণ আয় করতে পারবেন এর জন্য আমার জন্য আপনাকে 70 পার্সেন্ট পেমেন্ট করবে এবং
30% তারা কেটে নিবে যতগুলো কপি বিক্রি হবে তার 70 পার্সেন্ট আপনি কমিশন হিসেবে পেয়ে যাবেন

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং খুবই জনপ্রিয় তরুণদের কাছে আপনার নিজস্ব সাইট করে অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং মার্কেটিং করে প্রচুর পরিমাণ আর্নিং করতে পারবেন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
©Notun BD © All rights reserved
Develper By ITSadik.Xyz