Breaking News

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যেকথা বলে সতর্ক করলেন ফখরুল

দেশজুড়ে বিএনপি আন্দোলন শুরু করার পূর্বে বিভাগীয় পর্যায়ে থেকে গণসমাবেশ শুরু করেছে বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় খুলনায় আজ অর্থাৎ ২২ অক্টোবর বিএনপির গণসমাবেশ একটি ভিন্নমাত্রা পায়। কারণ বিএনপির সমাবেশ ঘিরে খুলনা বিভাগে খুলনায় প্রবেশ সড়কগুলোতে গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়। কিন্তু তা সত্বেও বিএনপি নেতাকর্মীরা খুলনায় গণসমাবেশে যোগ দেন। এই সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি তার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সতর্কবার্তা দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমি শেখ হাসিনাকে বলছি, পদত্যাগ করুন, নিরপেক্ষ সরকার দিন। আমাদের অন্য কোনো বিকল্প নেই। আন্দোলন, আন্দোলন ও আন্দোলনের মাধ্যমে আমরা এই ভয়াবহ শেখ হাসিনা সরকারকে পদত্যাগ করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে বাধ্য করব।
শনিবার বিকেলে খুলনা বিভাগীয় গণসভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আপনারা (বিএনপি নেতাকর্মীরা) অসাধ্য সাধন করেছেন। তিন দিন ধরে স্থল ও জলপথে সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। গত দুই দিন ধরে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। তারপরও কী সরকার এই জনসমাবেশ বন্ধ করতে পেরেছে। ইতিহাস বলে মানুষের ন্যায্য দাবি তাদের ওপর হাম”লা করে রক্ষা করা যায় না।
তিনি বলেন, গত দুই দিনে পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আহ”ত হয়েছেন বহু নেতাকর্মী। বিএনপির মিছিলে গু”/লি চালানো হয়। ২০ জন গু”/লিবি”দ্ধ হন। সমাবেশে আসা নেতাকর্মীদের নৌকা ডুবিয়ে আহত করা হয়েছে যার কারনে সেখানে আহত শতাধিক নেতাকর্মী। গাজীর হাটে পানিতে ডুবে এক নেতার মৃ”/ত্যু হয়েছে। তাকে এখনো পাওয়া যায়নি। আজ নেতাকর্মীরা লড়া/ই করে এখানে এসেছেন।

পুলিশের গু”লিতে প্রয়াত নেতাদের কথা স্মরণ করে মির্জা ফখরুল বলেন, গু//’লির সামনে, বন্দু’কের সামনে বুক পেতে দিয়েছে। কারণ তারা বাংলাদেশে গণতন্ত্র দেখতে চায়।
আওয়ামী লীগের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে তারা ১৭৩ দিন ধর্মঘট করেছে। ক্ষমতায় আসার পর বিচারপতি খায়রুল হককে দিয়ে সংবিধান পরিবর্তন করে চিরকাল ক্ষমতায় থাকার ব্যবস্থা করেছে। আমাদের গ্রেফ”তারকৃত সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি দিন। নইলে রেহাই পাওয়া যাবে না।

বিএনপি নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা অনেক নির্যা’/তন ও হামলার শিকার হয়েও সমাবেশে এসেছেন। যেটা সরকারের জন্য একটি বড় ধরনের ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনাদেরকে এই অগনতান্ত্রিক সরকার পতন করতে দীর্ঘ লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে যেতে হবে। আপনারা নিজেদেরকে সুসংগঠিত করার মাধ্যমে শক্তিশালী করে গড়ে তুলুন। শীঘ্রইএই সরকারের পতন হবে।

About admin

Check Also

ওবায়দুল কাদেরের উদ্বোধনী বক্তব্যের সময় হঠাৎ গোলাগুলি, হাসপাতালেএকজন

শুধু বিরোধী দলই নয়, বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরেও ঘটছে নানা অপ্রত্যাশিত কাণ্ড। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *