Breaking News

তারেক রহমান কবে আসবেন দেশে এবার সেই তথ্য জানিয়ে দিলেন শামীম ওসমান

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতির একটি বড় নাম শামীম ওসমান। রাজনীতির ক্যারিয়ারের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত তিনি আওয়ামীলীগের বড় একটি নাম হয়ে আছেন। সম্প্রতি শামীম ওসমান জানিয়েছেন নতুন কথা।বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দেশে ফিরে প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, মির্জা ফখরুল বলছেন খালেদা জিয়া ১০ তারিখে এবং তারেক রহমান ১১ তারিখে আসবেন। ঘোড়ার ডিম আসবে, ঘোড়ার ডিম। যেদিন ঘোড়া ডিম দেবে সেদিনই তারা আসবে।

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ রাইফেলস ক্লাবে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রোববার (২৩ অক্টোবর) জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ঘিরে এ প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়।
শামীম ওসমান বলেন, কিছুক্ষণ আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর বলেছিলেন, আওয়ামী লীগের কথা শুনলে ঘোড়ারাও হাসে। ঠিক আছে বলছে তুমি ঘোড়ার হাসি দেখছ। এটা সত্য যে ঘোড়া হাসে। ঘোড়ার হাসি আছে। আসলে, প্রাণী পশু জানে। ঘোড়া ডিম পাড়ে না। যেদিন ঘোড়া ডিম দেবে সেদিনই তোমার স্বপ্ন সত্যি হবে। সেদিন আসবেন খালেদা জিয়া, তারেক রহমান। আর আমরা নারায়ণগঞ্জের মানুষ প্রস্তুত।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা একটা জায়গায় গিয়েছিলাম। একটা ধাক্কা আসছে। সেজন্য তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বারবার বলছেন, সাবধান, দুর্ভিক্ষ। তা নিয়েও ব্যঙ্গ করা হয়। জাতির উদ্দেশে বার্তা দিলেন শেখ হাসিনা। পৃথিবী আজ কাঁদছে। তাই তিনি বাঙালি জাতির অভিভাবক হিসেবে হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন।
শামীম ওসমান বলেন, শামীম ওসমান প্রার্থী সম্মেলন ঘিরে অনেক পত্রিকায় লেখালেখি হচ্ছে। জাতির জনকের কন্যার কাছ থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি সেটাই ছিল সবচেয়ে বড় উপহার। জাতির জনকের কন্যা আমাদের নিয়ে রাজনীতি করছেন। ছেলে-মেয়েদেরও দূরে রাখা হয়। সারাদিন কাজ করে কারো সাথে কথা বলার সময় নেই।
তিনি আরও বলেন, ২৩ তারিখ আমাদের সম্মেলন হবে। সম্মেলন সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা করতে হবে। বার্তা পরিষ্কার, আমি প্রার্থী নই। আমি শেখ হাসিনার সৈনিক।

শামীম ওসমান বলেন, এখন যদি আপনার বাসায় ডাকাত পড়ে আর দেখেন আপনার পরিবারের সবাই শেষ। তাহলে কী হবে। আমিতো পাগল হয়ে যাব। প্রধানমন্ত্রীর পুরো পরিবারটাকে মেরে ফেলেছে। কী দোষ ছিল।
তিনি আরও বলেন, নেত্রীকে বলেছি আমাদের মুক্তি দিতে। আমাদের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। তারপর বললেন, তার স্বপ্ন পূরণ হয়নি। তাতেই মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ।

তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জে বিএনপির ভাইদের উদ্দেশ্যে কিছু বলতে চাই। আমি ২০০১ সাল থেকে করা সমস্ত নৃশংসতা ভুলে যেতে চাই। আপনি নফল নামাজ পড়ুন। জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী। নইলে তোমার কী হতো জানি না। নারায়ণগঞ্জের ছেলেমেয়েরা যে ভাষায় কথা বলছে তা ভালো যাচ্ছে না। আমাদের তরুণ কর্মীও আছে। তাদের রক্ত গরম। কতক্ষণ ধরে রাখব?
শামীম ওসমান বলেন, মানুষ আপনার কী প্রশংসা করে বলে আপনি মনে করেন। খারাপ জিনিস দেখে বলে তাদের বাবা-মা এমন কথা বলছে। সমালোচনা করুন, এসব নোংরা কথা বলবেন না।
তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জে এত মানুষ কেন এসেছেন জানতে চেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নিজেই। আমি বললাম মানুষ তোমাকে ভালোবাসে। আমরা আপনার কর্মী বলেই এত লোক আসে। আল্লাহ তায়ালা দেশের মানুষকে বাঁচাতে শেখ হাসিনাকে আবার ক্ষমতায় আনুন।
এ ছাড়াও ওই অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগের অনেক হেভিওয়েট নেতার। তারা সকলেই আবারো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দিয়ে জিতিয়ে ক্ষমতায় আনার কথা জানান জনগণকে।

About admin

Check Also

ওবায়দুল কাদেরের উদ্বোধনী বক্তব্যের সময় হঠাৎ গোলাগুলি, হাসপাতালেএকজন

শুধু বিরোধী দলই নয়, বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরেও ঘটছে নানা অপ্রত্যাশিত কাণ্ড। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *