‘লোডশেডিং নিয়ে দুঃখপ্রকাশ ছাড়া কিচ্ছু করার নাই’

সারা বিশ্বে জ্বালানির দাম যেভাবে বেড়েছে, তাতে আপাতত বিদ্যুৎ পরিস্থিতি নিয়ে দুঃখপ্রকাশ ছাড়া সরকারের কিছু করার নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ৷

‘ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ টকশো-তে এবারের আলোচনার বিষয় ছিল- বিদ্যুৎ সংকটের নেপথ্যে৷ এবারের পর্বে অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ৷

এখন দেশজুড়ে যে লোডশেডিং হচ্ছে, শীতকালে সে চাপ কমে আসবে বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী৷ বেশ কয়েকটি উৎস থেকে জ্বালানি ও বিদ্যুতের সরবরাহ পাওয়া গেলে আগামী বছরের মার্চ নাগাদ পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷ তবে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম ওঠানামার ওপর এটি অনেকখানি নির্ভর করবে, ফলে এই হিসাব নাও মিলতে পারে বলেও আশঙ্কা করেন প্রতিমন্ত্রী৷

খালেদ মুহিউদ্দীন প্রশ্ন করেন, লোডশেডিংয়ের ফলে যে অর্থনৈতিক ক্ষতি হচ্ছে, সেটি সরকার বিবেচনায় রেখেছে কিনা৷ উত্তরে নসরুল হামিদ বলেন, ‘‘এটার জন্য দুঃখপ্রকাশ করা ছাড়া কিচ্ছু করার নাই৷ সারা বিশ্বের বাইরে বাংলাদেশ না৷ আমরা ব্লিডিং হচ্ছি৷ আমরা যে দামে জ্বালানি কিনছি, তাতে সরকারের ব্লিডিং হচ্ছে৷ আমাদের হার্ড আর্নিং ফরেন কারেন্সির দাম বেড়ে গেছে৷ আমাদের একটা জায়গায় এটিকে থামাতে হবে৷”

বিদ্যুৎ বিভাগ যেভাবে এগিয়েছে, জ্বালানি বিভাগ সেভাবে আগায়নি বলে মনে করেন প্রতিমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, ‘‘জ্বালানি বিভাগ স্লো গেছে৷ বিদ্যুৎ বিভাগ যেভাবে টিম ওয়ার্ক করে সামনে এগিয়েছে, জ্বালানি বিভাগ সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেছে৷ আমাদের ৫-৭ বছর আগে জ্বালানির ক্ষেত্রে ভূমিকাটা যেভাবে নেয়া উচিত ছিল, তারা সেখানে সিদ্ধান্ত নিতে একটু দেরি করেছে, আমরা দেখতে পেয়েছি৷”

কয়লা উত্তোলনের ব্যাপারকে স্পর্শকাতর বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী৷ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, ‘‘বহুবার আমরা চেষ্টা করেছি যে আমাদের মাটির নীচের সম্পদ আমরা ব্যবহার করতে পারি কিনা৷ কিন্তু এখানে এখটা বড় জিনিস রয়েছে৷ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে খুবই সেনসিটিভ৷ কৃষকের ব্যাপারে, পরিবেশের ব্যাপারে, খাদ্যের ব্যাপারে উনি সেনসিটিভ৷ উনি বলেছেন, এমন কোনো টেকনোলজি যদি থাকে যে কৃষকের জমি নষ্ট হবে না, তাহলে তোমরা কয়লা তুলতে পারো৷ এছাড়া না৷”

খাদ্য নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে, দুর্ভিক্ষের ঝুঁকি মাথায় রেখে কৃষি জমিকে রাজনীতিবিদেরা গুরুত্ব দিতে চাচ্ছেন৷ প্রতিমন্ত্রী জানান এ কারণেই কয়লা উত্তোলন থেকে আপাতত বিরত থাকছে সরকার৷

About admin

Check Also

সুখবর দিলেন মিথিলা

দুই বাংলার অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। সম্প্রতি এই অভিনেত্রী জানালেন— নতুন একটি ওয়েব সিরিজে যুক্ত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *