Breaking News

লেবার পার্টি হতে বহিষ্কার করে দেওয়া হলো ব্রিটিশ বাংলাদেশি এমপি রূপা হককে, জানা গেল কারণ

রুপা হক যিনি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত লেবার পার্টির ব্রিটিশ সংসদ সদস্য হিসেবে রয়েছেন, তাকে সাময়িকভাবে দল থেকে বহিষ্কার করে দেয়া হয়েছে। তিনি সেখানকার চ্যান্সেলরকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানা যায়। হঠাৎ করে কেন তিনি এ ধরনের মন্তব্য করলেন সে বিষয়ে কোন কিছু জানা যায়নি। জানা গিয়েছে, চ্যান্সেলর কোয়াসি কোয়ার্টেং লেবার পার্টির কনফারেন্স ফ্রেঞ্জ ইভেন্টে একটি মন্তব্য করার জন্য তার বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

একটি কনফারেন্স ফ্রিঞ্জ ইভেন্টে, চ্যান্সেলরকে ‘সুপারফিশিয়ালি’ কালো বলে মন্তব্য করার জন্য রুপা সমালোচনার মুখে পড়েন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার দল লেবার পার্টি বিষয়টি তদন্ত করে তাকে সাময়িকভাবে দল থেকে বহিষ্কার করে এবং তদন্তকালে তাকে দলীয় হুইপের পদ থেকে প্রত্যাহার করে।
পার্টি কনফারেন্স ফ্রিঞ্জ ইভেন্টে কোয়াসি কোয়ার্টেং সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে মিসেস হক আরও বলেন, ‘আপনি যদি আজকের প্রোগ্রামে তার কথা শুনতে পান, তবে আপনি জানতে পারবেন না যে তিনি কালো। ’

টোরি পার্টির চেয়ারম্যান জেক বেরি তার মন্তব্যকে ঘৃণ্য বলে অভিহিত করেছেন। ডেপুটি লেবার নেতা অ্যাঞ্জেলা রেনার বলেছেন, মন্তব্যগুলি “অগ্রহণযোগ্য”। বিবিসির পলিটিক্স লাইভ প্রোগ্রামের সাথে কথা বলার সময়, তিনি বলেছিলেন যে মিস হকের ক্ষমা চাওয়া উচিত, অন্যদিকে পার্টির পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র ডেভিড ল্যামি মন্তব্যটিকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে বর্ণনা করেছেন। অ্যাঞ্জেলা বলেন, ‘আমি নিজে এমন মন্তব্য করতাম না।’

প্রাক্তন চ্যান্সেলর এবং টোরি এমপি সাজিদ জাভিদ বলেছেন যে, তিনি ক্লিপটি দেখে ‘আত”/ঙ্কিত এবং দুঃখিত’। বলেছেন, গায়ের রং এর কথা এবং যারা আমাদের এই বিষয় দিয়ে বিভক্ত করতে চায় তাদের উৎসাহিত করা উচিত নয়।
সংসদীয় দলের সদস্যপদ স্থগিত হওয়ায় রুপা হক এখন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হিসেবে সংসদে বসবেন। ইলিং সেন্ট্রাল এবং অ্যাক্টন এমপি রুপা সোমবার সন্ধ্যায় ‘হোয়াটস নেক্সট ফর লেবারস এজেন্ডা অন রেস’ শিরোনামের একটি প্রান্তিক ইভেন্টে মন্তব্য করার পর এটি রেকর্ড করা হয়।
লিভারপুলে লেবার পার্টির কনফারেন্সে স্যার কেয়ার স্টারমারের বক্তৃতা শুরু হওয়ার কয়েক মিনিট আগে অডিও ক্লিপটি গুইডো ফকস ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছিল।

প্রশ্নোত্তর পর্বে রুপা বলেন, ‘তিনি অতিমাত্রায় একজন কালো মানুষ, কিন্তু তার মধ্যে আবার কমন অনেক মিল রয়েছে। তিনি ব্যয়বহুল প্রিপ স্কুল ইটনে গিয়েছিলেন, দেশের শীর্ষ বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। আজকের প্রোগ্রামে তার কথা যদি শুনতে পান তবে বুঝতেই পারবেন না যে তিনি কালো। ‘
মিঃ কোয়ার্টেং হলেন ঘানার বংশোদ্ভূত বৃটেনের একজন নাগরিক। তিনি চলমান মাসের প্রথম দিকেই চ্যান্সেলর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন জানা গিয়েছে। তিনি পূর্ব লন্ডনের একটি শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বৃটেনের রাজনীতিতে একজন সক্রিয় রাজনীতিবিদ হিসেবে দীর্ঘ সময় রাজনীতিতে ভূমিকা রেখেছেন।

About admin

Check Also

ওবায়দুল কাদেরের উদ্বোধনী বক্তব্যের সময় হঠাৎ গোলাগুলি, হাসপাতালেএকজন

শুধু বিরোধী দলই নয়, বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরেও ঘটছে নানা অপ্রত্যাশিত কাণ্ড। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *