Breaking News

অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব: ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে জখম

ফরিদপুরে জেলা ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভ মালোকে (২৪)।

রবিবার রাত ১০টার দিকে ফরিদপুর শহরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী আহত সৌরভ মালোকে উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। তিনি বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন।

আহত সৌরভ মালো ফরিদপুর শহরের লক্ষ্মীপুর মহল্লার বাসিন্দা উত্তম মালোর ছেলে।

জেলা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি ছাত্রলীগ জেলা সভাপতি তামজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ান এবং সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদের নেতৃত্বে বিভক্ত।

গত ৪ জুলাই ছাত্রলীগ কর্মী সবুজ মোল্লাকে (২৮) কুপিয়ে হত্যা করা হয়। শহরতলীর বায়তুল আমান এলাকায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে। ওই হত্যা মামলার কারণে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুল রশিদ বেশ কিছুদিন ফরিদপুরের বাইরে ছিলেন।

এ ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ বিরোধ স্পষ্ট হয় গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্র সংসদ (রুকসু) ভবনে সভাপতি সমর্থিত অংশের সাথে সাধারণ সম্পাদক সমর্থিত অংশের মারামারির ঘটনায়। রাজেন্দ্র কলেজে বর্তমানে ছাত্র সংসদ নেই। রুকসু ভবনটি জেলা ছাত্রলীগ দলীয় কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করা হয় গত ১৪ মাস ধরে।

সম্প্রতি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ওই হত্যা মামলায় হাইকোর্ট থেকে ছয় সপ্তাহের জামিনে আছেন।

গত ১১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাতটার দিকে সভাপতি তামজিদুলের অনুসারী শহর ছাত্রলীগের মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদের অনুসারী শহর ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সজীব আহমেদের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষে শহর ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সজিব আহমেদ ও তার দুই অনুসারী ফয়সাল, বাপ্পি আহত হয়ে জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন।

ওই ঘটনায় আহত এবিএম ফয়সাল গত ১২ সেপ্টেম্বর শহর ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমানসহ ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও১৫/২০জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। ওই মামলার চার নম্বর আসামি ছিলেন সৌরভ মালো। ওই সংঘর্ষের জেরে গত রবিবার রাতে সৌরভ মালোকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে জানিয়েছে পুলিশ।

সৌরভ মালো জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুল রশীদ চৌধুরী রিয়ানের অনুসারী।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার সাংবাদিকদের বলেন, সৌরভ মালোকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পোচ দিয়ে আহত করা হয়েছে। তার মুখ, মাথা ও হাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ ঘটনায় পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে তিনটি মোটরসাইকেলে ছয়জন তরুণ এ হামলায় অংশ নেয়।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ জলিল বলেন, সৌরভ মালোকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তিনি বলেন, এ ঘটনায় ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত তিনজনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত গত ২০২১ সালের ১৯ মে তামজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ানকে সভাপতি ও ফাহিম আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা ছাত্রলীগের ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কাওসার আখন্দ বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুল রশিদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ফাহিম আহমেদ দুজনেই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক সাংসদ আব্দুর রহমানের অনুসারী। তাদের নিজেদের মধ্যে কী নিয়ে ঝামেলা হলো তা আমার জানা নেই। এখন ওরা নিজেরা নিজেরা ভেজাল করে ঝামেলা করে বেড়াচ্ছে।

About admin

Check Also

পুলিশ বলল ‘নেই’, হাজতখানা থেকে স্বামী চিৎকার করে স্ত্রীকে বলল ‘আছি’

আইনজীবী এবং মানবাধিকারকর্মী আবুল হোসাইন রাজন। পুরান ঢাকার বাসা থেকে অফিসের উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলেন ২২ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *