Breaking News

যুক্তরাষ্ট্রে বসে অফিস করার অনুমতি পাননি ওয়াসার এমডি

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাকসিম এ খান। চেয়েছিলেন ৬ সপ্তাহের ছুটিতে যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন। সেখানে অবস্থানকালীন তার অবর্তমানে অন্য কেউ যাতে দায়িত্ব না পায় তার জন্য নিজেই ‘ভার্চুয়াল অফিস’ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। যদিও তার সেই প্রস্তাবকে সমর্থন করেনি ঢাকা ওয়াসা বোর্ড। ওয়াসা বোর্ডের অনুমতি না পেলেও গত ৭ই সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব বরাবর ছুটির আবেদন করেন তাকসিম এ খান। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, তিনি অন্য কাউকে এমডির দায়িত না দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বসে ‘অন ডিউটি’তে থাকবেন। তবে স্থানীয় সরকার বিভাগ তার আবেদন পত্রটি গ্রহণ করে ছয় সপ্তাহ ছুটির অনুমতি দিলেও ‘ভার্চুয়াল অফিস’ করার সুযোগ দেয়নি। ফলে তিনি ছুটিতে থাকাকালীন অফিস করতে পারবেন না। এই সময়ে ঢাকা ওয়াসার উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ) এ কে এম সহিদ উদ্দিনকে এমডির অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে গত বুধবার স্থানীয় সরকার বিভাগের পানি সরবরাহ শাখা থেকে তাকসিম এ খানের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের অনুমতিপত্র জারি করা হয়।

সেখানে বলা হয়েছে, ঢাকা ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খানকে চিকিৎসা এবং যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

আগামী ২৪শে সেপ্টেম্বর থেকে ৪ঠা নভেম্বর পর্যন্ত অথবা যাত্রার তারিখ থেকে ৬ সপ্তাহের জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রে থাকতে পারবেন। তাকসিম এ খানের ছুটিতে থাকার সময়ে সংস্থাটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ) এ কে এম সহিদ উদ্দিন নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে এমডির দায়িত্ব পালন করবেন। এর আগে ৭ই সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব বরাবর ছুটির আবেদনে তাকসিম এ খান উল্লেখ করেন, নিজের (তার) চিকিৎসা এবং যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা পরিবারের সদস্যদের (স্ত্রী, পুত্র ও পুত্রবধূ) সঙ্গে দেখা করতে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া প্রয়োজন। ঢাকা ওয়াসা বোর্ড ১০ই আগস্ট থেকে ৯ই অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি অনুমোদন করলেও ওই সময় দাপ্তরিক কাজের কারণে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে যেতে পারেননি। আগামী ২৪শে সেপ্টেম্বর থেকে ৪ঠা নভেম্বর পর্যন্ত ৬ সপ্তাহের জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রে যেতে চান। যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানের সময় তিনি ‘অন ডিউটি’তে থাকবেন।

ওয়াসার বিভিন্ন শাখা সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখবেন। এই সময়ে তার পক্ষ থেকে সংস্থাটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম সহিদ উদ্দিন বিভিন্ন সভায় উপস্থিত থাকবেন। তাকসিম এ খান ২০০৯ সালে ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পান। তার পরিবারের সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানোর জন্য তিনি প্রায় প্রতিবছরই একটি নির্দিষ্ট সময় যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন। গত বছরের ২৫শে এপ্রিল থেকে ২৪শে জুলাই তিন মাস তিনি যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন। এর আগে ২০১৯ সালেও ছুটিতে যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (পানি সরবরাহ) মো. খাইরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, তাকসিম এ খান নিজের মতো করে ছুটির আবেদন করেছিলেন। এবার তার ছুটির সিদ্ধান্ত ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের সিদ্ধান্তের আলোকে হয়েছে। তিনি ছুটিতে থাকবেন। ডিএমডি সহিদ উদ্দিন এমডির দায়িত্ব পালন করবেন।

About admin

Check Also

পুলিশ বলল ‘নেই’, হাজতখানা থেকে স্বামী চিৎকার করে স্ত্রীকে বলল ‘আছি’

আইনজীবী এবং মানবাধিকারকর্মী আবুল হোসাইন রাজন। পুরান ঢাকার বাসা থেকে অফিসের উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলেন ২২ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *