Breaking News

‘অসুস্থতা নিয়ে অফিস করা যায়, হাই লেভেল ভিজিট সম্ভব নয়’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন কিছুটা অসুস্থ বলে ভারত সফরে যেতে পারেনি। অসুস্থ থাকলে অফিস করা যায়, কিন্তু এত হাই-লেভেল (উচ্চ পর্যায়ের) ভিজিট করা কঠিন বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।
ভারতের কাছ থেকে যা কিছু আদায় আওয়ামী লীগ সরকারই করেছে, জননেত্রী শেখ হাসিনাই করেছেন। বিএনপি সব সময় দিয়ে এসেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।মঙ্গলবার (০৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতবার ভারত সফরে গিয়েছেন ততবার খালি হাতে ফিরে এসেছেন—এ প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, গতকাল মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যে কথাটি বলেছেন, সেটা বিএনপি ও বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়ার জন্য প্রযোজ্য। খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে ভারত সফর গিয়েছিলেন, সফর থেকে ফেরার পর তাকে যখন জিজ্ঞেস করা হলো, গঙ্গার পানির ন্যায্য হিস্যা নিয়ে কী কথা হয়েছে। তখন খালেদা জিয়া বলেছিলেন—আল্লাহ আমি ওটা ভুলেই গিয়েছিলাম। যাদের নেত্রী ভারত সফরে গিয়ে গঙ্গার পানি ন্যায্য হিস্যার কথা বলতে ভুলে যান, তারা আবার এসব কথা বলে। তারাই সব সময় ভারতকে সব দিয়েছেন, কিছু আনে নি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকার ও বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার ও রক্তের অক্ষরে লেখা। এই সরকারের আমলেই আমাদের দুই দেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে। কিন্তু আমাদের সম্পর্ক ন্যায্যতার ভিত্তিতে। আমাদের সরকার পারস্পরিক সস্পর্কের মাধ্যমে সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় উন্নীত করেছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, আমাদের সরকার ভারত থেকে অনেক কিছু আদায় করেছে। প্রধানমন্ত্রী পর পর তিন বার রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন। এরমধ্যে প্রথমবার ভারত থেকে ২০ পণ্য বাদে সকল পণ্যের ওপর ট্যারিফ সুবিধা আদায় করেছেন। ১৯৭৪ সালের মৈত্রী চুক্তি অনুযায়ী ছিটমহলগুলো আমাদের হস্তান্তর করার কথা ছিল। কিন্তু বিএনপি কয়েক দফা ক্ষমতায় ছিল, এরশাদ সাহেব ক্ষমতায় ছিল, তারপর আরও জরুরি সরকার ক্ষমতায় ছিল। কেউ ছিটমহলের অধিকার আদায় করতে পারেনি। সেটা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সরকার ভারতের সাথে আলচনা করে আদায় করেছে। ফলে ছিটমহলগুলো আমাদের অধিকারে এসেছে এবং আয়তন বেড়েছে। আমাদের সরকারই ভারতের সাথে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করে সমুদ্রসীমা জয়লাভ করেছে। সুতরাং ভারতের কাছ থেকে যা কিছু আদায় আওয়ামী লীগ সরকারই করেছে, জননেত্রী শেখ হাসিনাই করেছেন। আর বিএনপি সব দিয়ে এসেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ভারত সফরে যেতে পারেননি, এ বিষয়ে আপনার মতামত জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী যখন বিদেশ যান তখন সব সময় ভরতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার সফরসঙ্গী হন না। এখানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যেটা বলা হয়েছে সেটা হলো—পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিছুটা অসুস্থ সে কারণে তিনি যাননি। এটিই আমাকে ধরে নিতে হবে।

অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন তাহলে গতকাল তিনি অফিস করলেন কীভাবে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, কিছুটা অসুস্থ থাকলে অফিস করা যায়। কিন্তু এরকম হাই লেভেল ভিজিট করা কঠিন বা সম্ভব নয়। আমিও তো কিছুটা অসুস্থ থাকলেও অফিস করি। কিন্তু সে অসুস্থ অবস্থায় আমার পক্ষে কি বিদেশ সফর করা সম্ভব, সম্ভব না। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী অসুস্থ থাকার কারণে সফর নির্ধারিত থাকার পরও তিনি যাননি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজকে বলেছেন আন্দোলনের মধ্যমে এই অগণতান্ত্রিক সরকারকে নামাতে হবে— এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে হাছান মাহমুদ বলেন, অগণতান্ত্রিকভাবে বন্দুকের নল থেকে যে দলের উৎপত্তি, জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করে বন্দুকের নল উঁচিয়ে মানুষ হত্যা করে ক্ষমতা দখল করে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে। এভাবে যে দলের উৎপত্তি বা প্রতিষ্ঠা, সে দল যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তখন মানুষ হাসে, গাধাও হাসে।

About admin

Check Also

হঠাৎ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তরে ৪ অনাবাসিক রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশে নবনিযুক্ত চার অনাবাসিক রাষ্ট্রদূত আজ রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *